সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০২:৩৭ পূর্বাহ্ন




নানার লালসার শিকার ৮ বছরের কিশোরী নাতনি

নানার লালসার শিকার ৮ বছরের কিশোরী নাতনি

নিউজ ডেস্ক :
জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার ধানুয়াকামালপুর ইউনিয়নের টেংরামারীতে নানার লালসার শিকার হয়েছে আট বছরের কিশোরী নাতনি। এ ঘটনায় লম্পট নানা মোতালেব মিয়াকে বুধবার রাত ১০টার দিকে লাউচাপড়া গ্রাম থেকে গ্রেফতার করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ।
বিদ্যালয় বন্ধ কিনা জানতে গিয়ে ওই শিক্ষার্থী দূর-সম্পর্কের নানার হাতে লালসার শিকার হয়েছে বলে জানিয়েছে ওই শিক্ষার্থীর পরিবার।

স্থানীয় ও নির্যাতিতা ওই শিক্ষার্থীর পরিবার জানায়, ৫ জুন সোমবার সকাল ১১টার দিকে টেংরামারী গ্রামের জনৈক কাঠমিস্ত্রির কন্যা বিদ্যালয় বন্ধ কিনা তা জানতে তার প্রতিষ্ঠান যদুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যায়। বিদ্যালয়ে গিয়ে জানতে পারে সরকারিভাবে সব বিদ্যালয় ৪ দিনের বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এরপর বিদ্যালয় থেকে বাড়ির দিকে ফেরার পথে ওই শিক্ষার্থীর দূর-সম্পর্কের নানা (মায়ের ফুফা) স্থানীয় যদুরচর গ্রামের মিয়ের উদ্দিনের ছেলে মোতালেব মিয়া (৫০) তাকে ২০ টাকা দিয়ে প্রলোভন দেখান। একপর্যায়ে একটি সুপারির বাগানে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন মোতালেব মিয়া। দুইদিন পর বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

ওই শিক্ষার্থীর মা জানান, বুধবার (৭ জুন) সকাল ৬টায় ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতির কাছে এ ঘটনার বিচার চাইতে গেলে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে তাকে জানানো হয়।

বকশীগঞ্জ থানার ওসি মো. সোহেল রানা জানান, স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনাটি তিনি প্রাথমিকভাবে জানতে পেরে বুধবার রাত ১০টার দিকে ওই ইউনিয়নের লাউচাপড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোতালেব মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা রুজুর পর কোর্টে সোপর্দ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com