শনিবার, ২০ Jul ২০২৪, ০৮:০১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
বাইলজকে বাফুফেরই বৃদ্ধাঙ্গুলি, ব্রাদার্সকে প্রিমিয়ারে সুযোগ আম্বানীদের বিয়েতে টালি শিল্পীরা, বিস্ফোরক মন্তব্য শ্রীলেখার রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির আয়োজনে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী লালমনিরহাটে কোটা সংস্কার আন্দোলনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ কোটা আন্দোলন: হামলা-সংঘর্ষ-হত্যা নিয়ে যা বলছে জাতিসংঘ তিস্তায় ভেসে আসা সেই লাশ ভারতের সাবেক মন্ত্রীর জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন আটোয়ারী থানার ওসি মুসা মিয়া বন্যার পানি কমে স্পষ্ট হচ্ছে ক্ষত, কৃষিতেই ক্ষতি ১০৫ কোটি টাকা রংপুরে পার্ক মোড় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক আবু সাঈদের নামে নামকরণ




রং নম্বরে প্রেম, বন্ধুকে নিয়ে মা-মেয়েকে ধর্ষণ করলেন প্রেমিক

রং নম্বরে প্রেম, বন্ধুকে নিয়ে মা-মেয়েকে ধর্ষণ করলেন প্রেমিক

নিউজ ডেস্ক :
রং নম্বর থেকে মোবাইলে প্রথম পরিচয় হয় ভুক্তভোগী তরুণী ও সেলিম রেজার। পরিচয় থেকে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে গত শনিবার রাতে বিয়ের কথা বলে প্রেমিকা ও তার মাকে ডেকে নিয়ে আসেন প্রেমিক সেলিম। পরে ভ্যানচালকের মাধ্যমে প্রেমিকা ও তার মাকে একটি পাটখেতে নিয়ে যান সেলিম। সেখানে মা ও মেয়েকে ধর্ষণের পর ফেলে রেখে যান সেলিম ও তার বন্ধু হাসান।
ঘটনাটি ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায়। এ ঘটনায় মামলা হলে প্রেমিকসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (আইও) ও শিবগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুকমল চন্দ্র দেবনাথ। এর আগে রোববার অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- প্রেমিক শিবগঞ্জ পৌর পিঠালিতলা মহল্লার বাসিন্দা সেলিম রেজা ও তার বন্ধু একই গ্রামের বাসিন্দা মো. হাসান এবং ভ্যানচালক পিঠালিতলা মহল্লার মো. মেহেরুল।

পরিদর্শক (তদন্ত) সুকমল চন্দ্র দেবনাথ জানান, রং নম্বর থেকে মোবাইলে প্রথম পরিচয় হয় ভুক্তভোগী তরুণী ও সেলিম রেজার। পরে তাদের মধ্যে প্রেম হয়। একপর্যায়ে গত শনিবার রাতে মেয়েকে দেখা ও বিয়ের কথা বলে মা-মেয়েকে শিবগঞ্জে ডেকে নিয়ে আসেন তিনি। পরে ভ্যানচালকের মাধ্যমে মা ও মেয়েকে ওই মাঠের পাশের পাটখেতে নিয়ে যান সেলিম। সেখানে মা ও মেয়েকে ধর্ষণের পর ফেলে রেখে যান সেলিম ও হাসান।

তিনি আরো জানান, স্ত্রী ও মেয়ের খোঁজ না পেয়ে একই দিন রাতেই শিবগঞ্জ থানা পুলিশকে জানান ওই তরুণীর বাবা। এরপর রাতেই উদ্ধার ও তল্লাশি অভিযান শুরু করে পুলিশ। পরে ভুক্তভোগী মেয়ের ও মায়ের মোবাইল ট্র্যাকিং করে তাদের অবস্থান শনাক্ত করা হয়। রোববার ভোরে ওই মাঠ থেকে মা ও মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। পরে একই দিন ভোরেই অভিযান চালিয়ে সেলিম, হাসান ও মেহেরুলকে করা আটক হয়েছে। রোববার সকালে মেয়ের মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ আসামিদের আদালতে পাঠায়।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com