রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৩১ অপরাহ্ন




উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় কিশোর গ্রুপের হামলায় বাবা-ছেলে আহত

উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় কিশোর গ্রুপের হামলায় বাবা-ছেলে আহত

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি :
রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছে টেইলারিং শিখতে গিয়ে উত্যক্তের শিকার হয় কিশোরী মেয়ে। আর এর প্রতিবাদ করায় কিশোর গ্রুপের হামলার শিকার হন পৌর কাউন্সিলর বাবা আব্দুর সামাদ মিয়া ও বড় ভাই খাইরুল ইসলাম। শনিবার (১২ নভেম্বর) সন্ধায় হারাগাছ থানার পাশে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রাতেই রংপুর মেট্টোপলিটন হারাগাছ থানায় মামলা হয়েছে।
থানা-পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, কাউন্সিলন আব্দুর সামাদের মেয়ে সদ্য এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। বেকার বসে না থেকে বাড়ী থেকে কিছুটা দুরে পৌরসভার মুন্সিপাড়া গ্রামে স্থানীয় এক বাড়ীতে টেইলারিং (দর্জি) প্রশিক্ষণে যাওয়া আসার সময় স্থানীয় বখাটে তারুন রিদয় ও তার সহযোগি চার তরুন তাকে উত্যক্ত করতো।

শনিবার (১২ নভেম্বর) বিকেলে ওই মেয়ে টেইলারিং (দর্জি) প্রশিক্ষণ নিয়ে বাড়ী ফেরার পথে আবারও বখাটে তরুন রিদয় ও তার সহযোগি বন্ধুরা তাকে একা পেয়ে বিভিন্ন অশালিন কথা বলে এবং উত্যক্ত করে। মেয়েটি কান্না করে বাড়ী গিয়ে বড় ভাইকে ঘটনা জানায়। পরে মেয়েটির ভাই বখাটে তরুনদের তার বোনকে উত্যক্ত না করতে নিষেধ করে। এসময় বখাটে তরুনরা মেয়েটির ভাইকে দেখে নেয়ার হুমকী দিয়ে চলে যায়। শনিবার সন্ধা ৬টার দিকে রিদয় (১৮), বিজয় (২৫), রিয়াদ(১৮) ও অজ্ঞাত আরো ১৮ জন কিশোর একত্রিত হয়ে হারাগাছ থানা ভবনের পাশেই পৌর কাউন্সিলর আব্দুর ছামাদের ব্যবসায়ী দোকানের সামনে গালাগালিজ করে। এসময় কাউন্সিলর ছেলে খায়রুল প্রতিবাদ করলে কিশোররা তাকে মারপিট করে। ছেলেকে বাঁচাতে কাউন্সিলর বাবা এগিয়ে আসলে বখাটে কিশোররা তাকেও কিল ঘুষি মেরে আহত করেন। চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে হারাগাছ হাসপাতালে ভর্তি করে।
স্থানীয় লোকজন জানায়, বখাটে কিশোররা হারাগাছ পৌর এলাকার মধ্যপাড়া ও মালিয়াটারী মধ্যপাড়া এলাকার বাসিন্দা। এদের সবার বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছর। তাদের একজনকে কোথাও যদি প্রতিবাদের শিকার হয়। তাহলে এরা একত্রিত হয়ে ওই এলাকায় গিয়ে প্রতিবাদকারীকে মারপিট করে। এদের বিরুদ্ধে এলাকায় অভিযোগের শেষ নেই।

মেয়েটির ভাই খাইরুল বলেন, বখাটে কিশোররা তাঁকে এবং বাবা মারপিট করেছেন। দোকান থেকে এক লাখ ষাট হাজার টাকা নিয়ে গেছে। পৌর কাউন্সিলর আব্দুর ছামাদ বলেন, শরীরে ও মাথায় প্রচন্ড ব্যাথা হচ্ছে। তিনি হামলাকারী ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার দাবি জানান।

রংপুর মেট্টোপলিটন হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, এ ঘটনায় মেয়েটির ভাই খাইরুল ইসলাম বাদী হয়ে শনিবার রাতেই থানায় মামলা করেছেন। রাতেই আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত কিশোররা গা ঢাকা দিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com