বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ১১:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
ফুলবাড়ী ফিটনেস পয়েন্ট ব্যায়ামাগার উদ্বোধন মাত্র দেড় ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ছাত্র-ছাত্রীর অপমৃত্যু, চাঞ্চল্যের সৃষ্টি ফুলবাড়ীতে প্রতিমা ভাংচুর করে মন্দিরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা-আতংকিত স্থানীয় হিন্দুরা কুড়িগ্রামে জ্বালানি তেল ও সারের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ বাসে ধর্ষণ: ৪ জনের স্বীকারোক্তি, ৬ জন রিমান্ডে ট্রেনের ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি: রেলমন্ত্রী মিশরী তরুণী এখন বীরগঞ্জের পুত্রবধূ শাক দিয়ে মাছ ঢাকতেই যুবলীগ সভাপতি সুমনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন কড়া নিরাপত্তায় তাজিয়া মিছিলে মানুষের ঢল পাঁচ বিশিষ্ট নারীকে বঙ্গমাতা পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী




গাইবান্ধায় গৃহবধূ হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

গাইবান্ধায় গৃহবধূ হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :
গাইবান্ধার সাঘাটায় গৃহবধূ পারভীন বেগম হত্যা মামলায় স্বামীসহ দুইজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় অপর তিনজন আসামিকে খালাস দেওয়া হয়।
বৃহস্পতিবার দুপুরে গাইবান্ধার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. ফেরদৌস ওয়াহিদ এই রায় দেন। রায় প্রদানের সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সাঘাটা উপজেলার কামালেরপাড়া গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে ছাইফুল ইসলাম ও ছাইফুলের প্রথম স্ত্রীর ছোটভাই ও পার্শ্ববর্তী বসন্তেরপাড়া গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে আবদুল করিম।

রায় প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ। তিনি বলেন, দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আদেশ দেন আদালত। একই মামলায় তিনজনকে খালাস দেওয়া হয়। খালাস প্রাপ্তরা হলেন ছাইফুলের প্রথম স্ত্রী পারভীন আকতার, আবদুল কুদ্দুস ও কোহিনুর বেগম।

জানা যায়, ২০১৫ সালে সাঘাটা উপজেলার বড়াইকান্দি গ্রামের আফজাল হোসেনের মেয়ে পারভীন বেগমের সঙ্গে কামালেরপাড়া গ্রামের ছাইফুল ইসলামের বিয়ে হয়। পারভীনের কোনো সন্তান নেই। বিয়ের পর থেকে ছাইফুলের সঙ্গে দ্বিতীয় স্ত্রী পারভীন বেগমের পারিবারিক ও সাংসারিক কলহ চলতে থাকে। ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে ছাইফুল একটি মাদক মামলায় গ্রেফতার হন। তিনি কারাগারে থাকাকালীন সময় দ্বিতীয় স্ত্রী পারভীন তার বাবার বাড়িতে থাকেন। কয়েক মাস পর ছাইফুল জামিনে মুক্তি পেয়ে পারভীন বেগমকে তার নিজের বাড়িতে নিয়ে যান। একই সালে ৩০ জুলাই পারভীন বেগমের মরদেহ আবদুল করিমের বাড়ির পায়খানার সেফটি ট্যাঙ্ক থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ নিয়ে নিহতের বড়ভাই আজিজুর রহমান ৩০ জুলাই রাতে বাদী হয়ে সাঘাটা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ছাইফুল ইসলাম, আবদুল করিম, পারভীন আকতার, আবদুল কুদ্দুস ও কোহিনুর বেগমসহ পাঁচজনকে আসামি করা হয়। এরমধ্যে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড ও তিনজনকে খালাস দেওয়া হয়। আসামি পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন আবু আহম্মেদ আব্দুল্যাহ।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com