শনিবার, ৩১ Jul ২০২১, ০৩:৩৮ অপরাহ্ন




পৈতৃক সম্পাত্তি ও গোরোস্থান দখল করে টেপামধুপুরে উল্টো মিথ্যা মামালা দায়ের

পৈতৃক সম্পাত্তি ও গোরোস্থান দখল করে টেপামধুপুরে উল্টো মিথ্যা মামালা দায়ের

জসিম মিয়া, কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি :
কাউনিয়ায় টেপামধুপুর ইউনিয়নের বিশ্বনাথ গোলজার বাজার এলাকায় বড় ভাই এছান উদ্দিন গং পৈতৃক সম্পত্তি ও পারিবারিক কবরস্থান টিনের বেড়া দিয়ে দখল করে উল্টো ছোট ভাই আবু ছায়েদ সহ ভাতিজাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামালা দায়ের করেছেন।
লিখিত অভিযোগে জানাগেছে মৃত আবু ছালেম এর রেখে যাওয়া ১.০২ একর জমি, যা তার ৪ ছেলে ওয়ারিশ মূলে পাবে। কিন্তু উক্ত জমি আইন অনুযায়ী বাটয়ারা না করে টাকা ও পেশি শক্তির জোরে এছান উদ্দিন এর নির্দেশে তার ছেলে আশিকুর, সেরাজুল ও আশরাফুল রাস্তার সাথে জমি ও পারিবারিক কবরস্থান দখল করে অন্য ভাইদের যাতায়তের রাস্তা বন্ধ করে দেয়। এ বিষয়ে কাউনিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুমুর রহমান ও টেপামধুপুর বিট পুলিশের এসআই ওসমান গনি ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে উভয় পক্ষের সাথে আলাপ আলোচনা করে মিমাংশা করার জন্য সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়। থানা থেকে রাস্তা ও কবরস্থান বাদে তাদেরকে ২৩ শতক জমি ভোগ করার পরামর্শ দেয়। তারা সেই প্রস্তাবে রাজিও হন এবং স্বাক্ষর করে আসেন। ওসি সাহেব ০৫ জন লোক ঠিক করে দেন যাতে তারা সঠিক ভাবে বিষয়টি দেখেন। দুপুরে এই আলোচনা করে আসেন অথচ ওই দিন বিকালে এছান এর পক্ষ থেকে ১৩জন কে আসামী করে ৪৪৭/৩৭৯/৪২৭/৫০৬/৩৪ ধারায় মিথ্যা ফৌজদারী মামলা করে। পুলিশ নিজে মিমাংশা করতে চাইলেন আবার পুলিশই মামলা নিল বিষয়টি নিয়ে ধু¤্রজাল তৈরী হয়েছে। সাধারন নিরহ প্রকৃতির মানুষ গুলোকে হয়রানী মুলক মামলা দেয়ায় এলাকাবাসী হতবাক। এলাকাবাসী জানায় যারা অপরাধি তারাই আবার মামলা করল অসহায় মানুষ গুলোর বিরুদ্ধে আর পুলিশ তা গ্রহন করল? এছান গং পারিবারিক কবরস্থান টিন দিয়ে ঘেরা দিয়ে দখল করার ফলে অন্য ভাই ভাতিজারা কবর জেয়ারত করতে পাচ্ছে না, এমন কি কেউ মারা গেলে তারা কবর দিতে পারবে না। এছান গং দের কবরস্থানের ঘেড়া খুলে দিতে বললে উল্টা গালিগালাজ সহ হুমকি প্রদান করে। এলাকাবাসী জানায় এছানগং এলাকায় মামলাবাজ হিসেবে পরিচিত। কারনে অকারনে সাধারন নিরিহ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা করে হয়রানি করে তারা। এলাকায় সাধারণ মানুষ তাদের অত্যাচারে অতিষ্ট। তার বড় ছেলে আশরাফুলের অর্থের উৎস নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে এলাকাবাসী। এব্যাপারে টেপামধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি জানান আমরা বিষয়টি নিয়ে মিমাংশার জন্য বসেছিলাম কিন্তু এছান গং কেন নিরহ মানুষ গুলোর বিরুদ্ধে মামলা করল তা আমার বুঝে আসে না। এব্যাপারে সুষ্ঠু সমাধান চেয়ে আনিছুর রহমান নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভুমি) অফিসার ইনচার্জ বরাবরে আবেদন করেছেন। নির্বাহী অফিসার তাহমিনা তারিন জানান অভিযোগ পেয়েছি, ওসি সাহেব কে বলেছি বিষয়টি দেখার জন্য।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com