বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৭:২৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
জসিমেরও ইচ্ছে করে বাবার হাত ধরে শহীদ মিনারে আসতে (ভিডিও) হাকিমপুর নর্ব নিবাচিত মেয়রকে গণ সংর্বধনা পীরগঞ্জে মেয়র পদে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অধ্যক্ষ খলিলের মতবিনিময় ডিমলায় শতভাগ খোলা জায়গায় পায়খানা মুক্ত এলাকা ঘোষনা লালমনিরহাটে বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে চিলমারীতে প্রতিবাদ সমাবেশ মুজিববর্ষ উপলক্ষে আটোয়ারীতে কন্যারত্মদের মার্শাল আর্ট প্রশিক্ষণ ডোমারে মানবেতর জীবন যাপন বেদে পরিবারের ফুলবাড়ীতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে আইসক্রীম তৈরী ফুলবাড়ীতে ৩৭৪ বোতল ফেন্সিডিল ও সাড়ে ১৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার-আটক-১




ভবিষ্যতে দেশেই তৈরি হবে যুদ্ধ বিমান

ভবিষ্যতে দেশেই তৈরি হবে যুদ্ধ বিমান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : ফাইল ছবি

নিউজ ডেস্ক :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশে এক সময় যুদ্ধবিমান তৈরি হবে। দেশের আকাশসীমা নিজেরাই নিরাপদ রাখব। বিমান বাহিনীকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আমরা দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে আরো ১০ ধাপ এগিয়ে নিতে কাজ করছি। এক্ষেত্রেও সফল হবো বলে বিশ্বাস করি।

মঙ্গলবার যশোরে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান বিমান বাহিনী ঘাঁটির পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের আকাশসীমা রক্ষা; স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য বিমানবাহিনীর ১১ ও ২১ স্কোয়াড্রনকে ওই আয়োজনে জাতীয় পতাকা প্রদান করা হয়।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটা গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে। জাতির পিতার ডাকে সাড়া দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয় বিমান বাহিনী। পাকিস্তানের অসংখ্য লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করেছে তারা। সীমিত শক্তি নিয়েও তারা যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে, জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পর জাতির পিতা স্বপ্ন দেখেছেন, সবদিক থেকে বাংলাদেশ সমৃদ্ধ হবে। সেই স্বপ্ন থেকেই সীমিত সম্পদ দিয়ে সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তুলেছিলেন। বিশেষ করে আধুনিক বিমান গড়ে তুলেছিলেন তিনি। বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা নীতিমালা-১৯৭৪ করে দিয়ে যান। সে আলোকে আমরা সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তুলছি। দেশের প্রতিরক্ষা খাত আধুনিকায়ন ও কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করছি। লালমনিরহাটে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ নানা কাজ করে যাচ্ছি। আজ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী দেশ ও বিদেশে সম্মানজনক অবস্থান তৈরি করেছে।

জাতীয় পতাকা পাওয়া বিমান বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতীয় পতাকা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা গৌরব ও সম্মানের। এ পতাকার মান রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। আমি মনে করি, আপনারা এই মর্যাদা রক্ষা ও দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সদা প্রস্তুত থাকবেন।

তিনি আরো বলেন, বিশ্বায়নের যুগে যেকোনো দেশের জন্য পেশাদার বিমান বাহিনী অপরিহার্য। আধুনিক ও যুগোপযোগী বাহিনী গড়তে আমরা ফোর্সেস গোল বাস্তবায়নে কাজ করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারিতে আমাদের সব স্থবির হয়ে গেছে। অনেক কিছু করতে পারি না। তবে সাধারণ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছি। প্রতিটি মানুষকে গর দিচ্ছি। তাদের ঘর আলোকিত করছি। কেউ গৃহহীন থাকবে না। অন্ধকারে থাকবে না।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করেছি। প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ২০৪১ ও ডেল্টা প্ল্যান ১০০ করেছি। বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছি। জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গঠন করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY BinduIT.Com