শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম




রংপুরে চার মাসে করোনা শনাক্ত ১৮৬১, মৃত্যু ৩২

রংপুরে চার মাসে করোনা শনাক্ত ১৮৬১, মৃত্যু ৩২

স্টাফ রিপোর্টার :
দেশে করোনা পরিস্থিতি শিথিল হয়ে আসাতে রংপুর অঞ্চলে নেই আগের মতো স্বাস্থ্য সচেতনতা। বেশির ভাগ মানুষই এখন করোনার ব্যাপারে উদাসীন। গ্রামে-শহরে মানুষের মধ্যে কমতে শুরু হয়েছে করোনা ভীতি। এতে করে সংক্রমণ ঝুঁকি বেড়েই চলেছে। করোনা রোগী শনাক্তকরণে পরীক্ষা কম হলেও বাড়ছে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।
চলতি মাসের ১ থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত রংপুর জেলায় ১৬১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও একজন। এদিকে গেল আটদিনে রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৪২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।
বর্তমানে রংপুর জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৮৬১ জনে দাঁড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২০ জন ও মারা গেছেন ৩২ জন।
রংপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত চার মাসে রংপুর মহানগরসহ আট উপজেলায় করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮৬১ জনে। এদের মধ্যে হাসপাতাল ও বাড়িতে থেকে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২০ জন। এই ভাইরাসে জেলায় ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
সূত্র আরও জানায়, শনিবার (৮ আগস্ট) জেলায় ১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগের দিন শনাক্ত হয়েছে আরও ২৬ জন। এছাড়াও ১ হতে ৬ আগস্ট পর্যন্ত যথাক্রমে ৮, ১৬, ৯, ৩২, ২৭ ও ২৬ জন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত হয়। গেল আট দিনে গড়ে প্রতিদিন ২০ জন করে আক্রান্ত হয়েছেন।
জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায় জানান, রংপুর জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছিল এপ্রিলের ৮ তারিখে। এরপর থেকে গত চার মাসে তা এক হাজার ৮০০ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ ১ হাজার ৫২০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩২ জনের।
রংপুরসহ বিভাগের অন্যান্য জেলার করোনা আক্রান্ত রোগীদের রংপুর ডেডিকেটেড করোনা আইসোলেশন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলেও জানান সিভিল সার্জন।
এদিকে বাংলাদেশ বিষয়ক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সিচুয়েশন রিপোর্ট-২৩ অনুযায়ী দেশে করোনা ‘আক্রান্তের হার’ সবচেয়ে কম রংপুর বিভাগে। রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) থেকে পাওয়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যানুযায়ী রংপুর বিভাগে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে ৩৪৭ দশমিক তিন জন আক্রান্ত।
এই বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে রংপুর জেলায়। এরপর রয়েছে দিনাজপুর, নীলফামারী, পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁও, গাইবান্ধা এবং সবচেয়ে কম কুড়িগ্রামে।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY NewsMoon.Com