মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০৩:৪০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৩, শনাক্ত ২৯৯৬ ঘরোয়া দুই উপায়ে দূর করুন মেছতা সুস্থ হয়ে ফিরলেন এক কোটি ৩১ লাখ ষড়যন্ত্রের খবর উড়িয়ে দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক রঞ্জুর বৃক্ষরোপণ দীর্ঘস্থায়ী বন্যার আশঙ্কায় প্রস্তুতির নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর ড. ওয়া‌জেদ মিয়ার কবর জিয়ারত কর‌লেন নবাগত বিভাগীয় ক‌মিশনার আব্দুল ওয়াহাব গোবিন্দগঞ্জে পুলিশি অভিযানে ৬ জুয়ারি গ্রেফতার জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে জলঢাকায় উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে ডিজিটাল জিটুপি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত




পীরগাছায় তিস্তার পানি বিপদ সীমার উপরে : বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে কয়েক হাজার মানুষ

পীরগাছায় তিস্তার পানি বিপদ সীমার উপরে : বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে কয়েক হাজার মানুষ

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি :
রংপুরের পীরগাছায় ক’দিনে অতিবর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তা নদীর পানি বেড়ে গতকাল সোমবার কয়েকটি এলাকা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। দেখা দিয়েছে আবরো বন্যা। এদিকে অতিবর্ষণে উপজেলার নিম্না ল প্লাবিত হয়ে পড়ায় বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব মানুষের মাঝে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়াও গবাদিপশু নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েছে পানিবন্দি এলাকার মানুষ। তিস্তা নদীর বাঁধ ও বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করেছন কয়েক হাজার মানুষ। বাঁধে আশ্রয় নেয়া মানুষজন খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন যাপন করছে।


গতকাল সোমবার ছাওলা ইউনিয়নের গাবুড়া, জুয়ান, রামশিং, শিবদেব ও হাগুরিয়া হাশিমসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পানিবন্দি হয়ে পড়া মানুষ অসহায় অবস্থা বিরাজ করছে। এখন পর্যন্ত সরকারি ভাবে কোন ত্রাণ সামগ্রী দেয়া হয়নি। পানিবন্দি হাবিবুর রহমান জানান, টানা বৃষ্টি ও উজানের ঢলে তিস্তার পানি ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। শনিবার সকাল থেকে পানি প্রবাহ বেড়েই চলছে।
বাঁধে আশ্রয় নেয়া জরিনা বেগম বলেন, হঠাৎ পানি বেড়ে যাওয়ায় ঘরের আসবাবপত্র কিছুই আনতে পারিনি। গত দুদিন থেকে এখানে পড়ে আছি। এখনো কোন ত্রাণ সাহায়্যে পাইনি।
ছাওলা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আব্দুল হাকিম বলেন, পানিবন্দি মানুষের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। দ্রুত তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরন করা হবে।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ বলেন, তিস্তায় পানি বৃদ্ধি ও ত্রাণ সহায়তার জন্য জেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আকতার হোসেন আশ্রয়কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেছে। তাদের মাঝে ৫শ প্যাকেট শুকনা খাবার, ২০ মেট্রিক টন চাল, নগদ এক লাখ টাকা ও গবাদিপশুর খাবারের জন্য ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তা দ্রুত বিতরন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © uttorersomoy.com
Design BY NewsMoon.Com